জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠ পুত্র শহীদ শেখ রাসেলের জন্মবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে সাইফ পাওয়ারটেক লিমিটেডের পৃষ্ঠপোষকতায় ও বাংলাদেশ দাবা ফেডারেশনের আয়োজনে শেখ রাসেল গ্র্যান্ডমাস্টার্স দাবা প্রতিযোগিতা ১৯ অক্টোবর থেকে রাজধানীর ঢাকার হোটেল পূর্বানীতে শুরু হয়েছে।

৯ রাউন্ড সুইস লিগ পদ্ধতিতে এ আসরে ১৮টি দেশের ৩২জন গ্র্যান্ডমাস্টার, ১ জন নারী গ্র্যান্ডমাস্টার, ২০জন আন্তর্জাতিকমাস্টার ও ৪জন নারী আন্তর্জাতিকমাস্টারসহ ১০২ জন খেলোয়াড় অংশগ্রহণ করছেন।

প্রথম রাউন্ডে বাংলাদেশের তিন গ্র্যান্ডমাস্টার জয় পেয়েছেন। গ্র্যান্ডমাস্টার জিয়াউর রহমান ক্যান্ডিডেটমাস্টার ইকরামুল হক সিয়ামকে, গ্র্যান্ডমাস্টার নিয়াজ মোরশেদ আফজাল হোসেন সাচ্চুকে ও গ্র্যান্ডমাস্টার এনামুল হোসেন রাজীব সাকলাইন মোস্তফা সাজিদকে পরাজিত করেন।

তবে ফিদেমাস্টার মো. তৈয়বুর রহমান ভারতের গ্র্যান্ডমাস্টার দেবাশীষ দাসের সাথে, ক্যান্ডিডেটমাস্টার তাহসিন তাজওয়ার জিয়া ইউক্রেনের গ্র্যান্ডমাস্টার আন্দ্রে সুমিতের সাথে, নারী ক্যান্ডিডেটমাস্টার আহমেদ ওয়ালিজা ভারতের গ্র্যান্ডমাস্টার পি কার্তিকায়নের সাথে ও মো. সাজিদুল হক ভারতের আন্তর্জাতিকমাস্টার শ্রীজিৎ পলের সাথে ড্র করেছেন।

এদিকে শীর্ষরেটেডধারী নেদারল্যান্ডের গ্র্যান্ডমাস্টার সের্গেই তিভিয়াকভ ভারতের নারী গ্র্যান্ডমাস্টার পি ভি নান্দিতাকে, আজারবাইজানের গ্র্যান্ডমাস্টার ভুগার আসাদলি পাকিস্তানের আন্তর্জাতিকমাস্টার মাহমুদ লোদীকে, ইউক্রেনের গ্র্যান্ডমাস্টার ভিতালি বেরনাডস্কাই ইরানের নারী আন্তর্জাতিকমাস্টার আলিনাসাব মুবিনাকে, ভারতের নারী আন্তর্জাতিকমাস্টার অর্পিতা মূখার্জী আজারবাইজানের গ্র্যান্ডমাস্টার সাদিকভ উলভিকে পরাজিত করেন।

এছাড়া ভারতের সংকেত চক্রবর্তী পোল্যান্ডের গ্র্যান্ডমাস্টার মাইকেল ক্রাসেনকভের সাথে ভারতের সংকেট চত্রবর্তী এবং শ্রীলঙ্কার ক্যান্ডিডেটমাস্টার লিয়ানাগে রানিনদু দিলশান ইউরি সোলোডোভনিচেসকোর সাথে ড্র করেন।

উল্লেখ্য প্রতিযোগিতায় মোট পঞ্চান্ন হাজার মার্কিন ডলার অর্থ পুরস্কার দেয়া হচ্ছে। অংশগ্রহণকারী গ্র্যান্ডমাস্টার ও অর্থ পুরস্কারের দিক দিয়ে এটি দেশের সর্ববৃহৎ দাবা আসর তো বটেই, একই সাথে এশিয়ার মধ্যেও এটি একটি শীর্ষস্থানীয় দাবা প্রতিযোগিতা।

২০ অক্টোবর বুধবার বিকেল ৩টায় একই স্থানে দ্বিতীয় রাউন্ডের খেলা শুরু হবে।